ছাড়া পেলেন দিদারুল আলম মাসুম

ছাড়া পেলেন দিদারুল আলম মাসুম

 নিজস্ব প্রতিবেদক
  ২০১৯-০৯-১৫: ০৬:৪৭ পিএম

গ্রেপ্তারের ৪২ দিনের মাথায় মুক্তি পেলেন ছাত্রলীগ নেতা সুদীপ্ত হত্যামামলায় কারাগারে থাকা লালখান বাজার ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক দিদারুল আলম মাসুম। রবিবার (১৫ সেপ্টেম্বর) বিকেল চারটার দিকে তিনি চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে মুক্তি পান। মুক্তির পর বিকেলে তাকে কারা ফটকে স্বাগত জানান, আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগ নেতারা।  এর আগে তাকে মুক্তি দিতে উচ্চ আদালতের আদেশ  সকালে কারাগারে পৌঁছে।
গত ৪ আগস্ট মাসুমকে ঢাকার বনানীর কামাল আতাতুর্ক এভিনিউ থেকে গ্রেপ্তার করেছিল পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।

২০১৭ সালের ৬ অক্টোবর সকালে নগরীর সদরঘাট থানার দক্ষিণ নালাপাড়ার নিজ বাসার সামনে নগর ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক সুদীপ্ত বিশ্বাসকে পিটিয়ে খুন করা হয়। ফেসবুকে লেখালেখির কারণে দিদারুল আলম মাসুমের নির্দেশে সুদীপ্তকে খুন করা হয় বলে শুরু থেকে অভিযোগ ওঠে। গত ১২ জুলাই মিজানুর রহমান নামে এক আসামি আদালতে জবানবন্দি দিয়ে জানান, সুদীপ্ত খুনের মূল পরিকল্পনাকারী ও নির্দেশদাতা ‘বড় ভাই’ দিদারুল আলম মাসুম। এরপর গত ২২ জুলাই চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের লালখান বাজার ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগ সমর্থিত কাউন্সিলর এ এফ কবির আহমেদ মানিক মাসুমের নামে বিশেষ বিবেচনায় বরাদ্দ থাকা দুটি অস্ত্রের (শটগান/৫৪৪৪/ডবলমুরিং ও পিস্তল/৩৩/খুলশী) লাইসেন্স বাতিলের জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আবেদন করেন।

ওই আবেদনের পর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে চট্টগ্রামের জেলা ম্যাজিস্ট্রেটকে অস্ত্র দুটির লাইসেন্স বাতিলপূর্বক জব্দের নির্দেশনা দেওয়া হলে গত ৩ আগস্ট দুপুর ২টার দিকে দিদারুল আলম মাসুম নিজে খুলশী থানায় গিয়ে অস্ত্র দুটি জমা দেন। অস্ত্র জমা দেওয়ার পরদিন ৪ আগস্ট রাত সাড়ে ১০টার দিকে মাসুমকে ঢাকার বনানীর কামাল আতার্তুক এভিনিউর ব্লু ওশান টাওয়ারের সামনে থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) একটি টিম। ৫ আগস্ট মাসুমকে আদালতে হাজির করে সুদীপ্ত হত্যা মামলায় ১০ দিনের রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করলেও আদালত তার দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছিলেন।

২০১৩ সালে ওয়াসা মোড়ে হেফাজতে ইসলামের আন্দোলনের সময় শর্টগান থেকে গুলি ছুড়ে আলোচনায় আসেন মাসুম। এরপরও তিনি লালখান বাজার এলাকায় নিজের আধিপত্য বিস্তারের জন্য বারবার গণমাধ্যমের শিরোনাম হয়েছেন। দিদারুল আলম মাসুম ১৯৯৭-৯৮ চট্টগ্রাম সরকারি সিটি কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি ছিলেন। 


সাবস্ক্রাইব ইউটিউব চ্যানেল