বাংলাদেশে ‘আসছেন’ পেলে?

বাংলাদেশে ‘আসছেন’ পেলে?

 স্পোর্টস ডেস্ক
  ২০১৯-১০-০৮: ১১:০৭ এএম

উন্নত প্রশিক্ষণের জন্য দীর্ঘমেয়াদে ব্রাজিলে বয়সভিত্তিক পর্যায়ের ফুটবলার পাঠাতে চায় বাংলাদেশ। এক মাসব্যাপী কার্যক্রমের সফলতায় সন্তুষ্ট হয়ে এবার বড় প্রকল্প হাতে নিতে চায় ক্রীড়া মন্ত্রণালয়। জানিয়েছেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল। আর বাংলাদেশের সরকারের পক্ষ থেকে কোনো উদ্যোগ নেয়া হলে, তা খতিয়ে দেখা হবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন বাংলাদেশের নিযুক্ত ব্রাজিলের রাষ্ট্রদূত।

ব্রাজিলের ১৯৭'তম স্বাধীনতা দিবস উদযাপনে রাজধানীতে আড়ম্বরপূর্ণ আয়োজন। দু দেশের সৌহার্দ্যপূর্ণ সম্পর্কের কথা উঠতেই এলো ফুটবলের গল্প। আর সেখানে অবধারিতভাবেই থাকলো অনূর্ধ্ব-১৫ ও ১৭ পর্যায়ের ৪ বাংলদেশি ফুটবলারের কথা। যারা কিছুদিন আগেই এক মাসের ট্রেনিং সেশন শেষ করে এলো সাম্বার দেশ থেকে।

তাদের পারফরম্যান্সে বেশ সন্তুষ্ট দু দেশের কর্মকর্তারাই। এই সফলতাকে তাই এবার আর ও বড় পরিসরে কাজে লাগাতে চান মন্ত্রী। নিতে চান দীর্ঘ মেয়াদে ব্রাজিলের অনুশীলনের সুযোগ।

যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল বলেন, এক মাসেই যেহেতু তারা এত উন্নতি করেছেন তাই আমরা যদি দুই বছরের প্রশিক্ষণ নিতে পারি তবে তা ফুটবলের উন্নয়নে বড় ভূমিকা রাখবে বলে আশা করছি।

লাল সবুজের তরুণ প্রতিভাদের নিয়ে উচ্ছ্বসিত ব্রাজিলের রাষ্ট্রদূতও। বাংলাদেশ সরকার থেকে নতুন কোন প্রস্তাব আসলে ভেবে দেখার আশ্বাস দিয়েছেন তিনি।

বাংলাদেশে নিযুক্ত ব্রাজিলের রাষ্ট্রদূত জোয়াও তাবাজারা ডি অলিভিয়েরা ‍জুনিয়র বলেন, তোমাদের ফুটবলাররা খুব ভালো। আমাদের দেশের কোচরা তাদের অনেক প্রশংসা করেছে। আমি তাদের উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ কামনা করছি। বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে নতুন কোনো প্রস্তাব আসলে অবশ্যই আমরা তা নিয়ে আলোচনা করব।

এদিকে বাতাসে নতুন গুঞ্জন, বাংলাদেশে না'কি আসছেন ফুটবলের কালো মানিক এডসন আরান্তেস ডি নাসিমান্তো পেলে। যদিও, এখনো কোনো সবুজ সংকেত পাননি বলেই জানালেন মন্ত্রী।

তিনি বলেন, তার আসা বা না আসা নিয়ে আমরা বিভিন্ন রকম কথা শুনছি। আমি রাষ্ট্রদূতের কাছে এ বিষয়ে প্রশ্ন করেছি। তিনি বলেছেন, এই বিষয়ে তিনি কিছুই জানেন না।


সাবস্ক্রাইব ইউটিউব চ্যানেল