'পুরনো গাড়ি পাঠিয়ে বাংলাদেশের পরিবেশ ধ্বংস করছে জাপান'

'পুরনো গাড়ি পাঠিয়ে বাংলাদেশের পরিবেশ ধ্বংস করছে জাপান'

 নিজস্ব প্রতিবেদক
  ২০১৯-১১-২৭: ০৭:২৬ পিএম

জাপান রিকন্ডিশন্ড (পুরনো) গাড়ি পাঠিয়ে বাংলাদেশের পরিবেশ ধ্বংস করছে বলে মন্তব্য করেছেন পিএইচপি ফ্যামিলির ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মহসিন।

বুধবার (২৭ নভেম্বর) চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। 

বৃহস্পতিবার থেকে নগরের জিইসি কনভেনশন সেন্টারে শুরু হতে যাওয়া তিন দিনব্যাপী তৃতীয় পিএইচপি মোটর ফেস্ট ২০১৯ উপলক্ষে উক্ত সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

পিএইচপি ফ্যামিলির ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মহসিন বলেন, পুরনো গাড়িগুলো বাংলাদেশে পাঠিয়ে দিচ্ছে জাপান। এসব পুরনো গাড়ির কারণে আমরা দূষণের শিকার হচ্ছি, আমরা মারা যাচ্ছি। অথচ আমরা এসব ভাবছি না। আমরা মনে করছি, কম দামে তো গাড়ি পেয়ে গেলাম। পুরনো গাড়ি পাঠিয়ে জাপান আমাদের দেশের পরিবেশ ধ্বংস করছে। এসব দিক বিবেচনায় সবার উচিত ব্র্যান্ড নিউ (নতুন) গাড়ি কেনা। 

তিনি বলেন, একটা রিকন্ডিশন্ড (পুরনো) টয়োটা গাড়ি কিনতে ১৫-১৬ লাখ টাকা লাগে। ব্র্যান্ড নিউ টয়োটা গাড়ি কিনতে লাগে ৩৫ লাখ টাকা। ব্র্যান্ড নিউ প্রিমিওর চেয়েও কম দামে আমরা প্রোটন গাড়ি দিচ্ছি। ১৪ লাখ ৮৯৯ টাকায় প্রোটন পাওয়া যাচ্ছে। রিকন্ডিশন্ড গাড়ির সাথে পিএইচপির প্রোটনের তুলনা হবে না। তাদেরকে আমরা প্রতিযোগিও ভাবি না। তারা আমাদের দেশের ক্ষতি করতেছে।

পিএইচপি অটোমোবাইলস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ আকতার পারভেজ বলেন, ৫ বছরের পুরনো গাড়ি কিনতে ১৫-১৬ লাখ টাকা পড়ছে। এবং সেটাতে প্রতিবছর ফিটনেসের জন্য টাকা দিতে হচ্ছে। কিন্তু পিএইচপি থেকে প্রোটন ব্যান্ড নিউ গাড়ি কিনলে, সেটা পাঁচ বছরের মধ্যে ফিটনেস সনদ নিতে হবে না। ফিটনেসের জন্য টাকাটা দিতে হচ্ছে না। 

তিনি বলেন, আমরা শুধু পিএইচপি প্রোটন গাড়ি বিক্রি করছি না। বিক্রয় পরবর্তী সেবাও দিচ্ছি। আল্লাহ না করুক, গাড়ি কেনার পর যদি কোন দুর্ঘটনা হয়, এমনও হতে পারে কোন ট্রাক মেরে দিয়েছে, এরপর এটা ঠিক করতে ১০ দিন, ২০ দিন যতদিন লাগে ততদিন আরেকটি প্রোটন গাড়ি আমরা ব্যবহার করতে দেব।

সংবাদ সম্মেলনে পিএইচপি ফ্যামিলির ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মহসিন জানান, বৃহস্পতিবার (২৮ নভেম্বর) দুপুর ১২টায় নগরের জিইসি কনভেনশন সেন্টারে মোটর ফেস্টের উদ্বোধন করবেন পিএইচপি ফ্যামিলির চেয়ারম্যান সুফি মোহাম্মদ মিজানুর রহমান। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি থাকবেন বাংলাদেশে নিযুক্ত মালয়েশিয়ান রাষ্ট্রদূত আমির ফরিদ আবু হাসান। উদ্বোধন অনুষ্ঠানে দেশের বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ, চেম্বার অব কমার্স নেতৃবৃন্দ, ব্যাংক বিমা কোম্পানির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত থাকবেন।

তিন দিনব্যাপী তৃতীয় পিএইচপি মোটর ফেস্ট ২০১৯- উৎসবে থাকবে মোটর বাইক শোভাযাত্রা, স্টান্ট শো, টেস্ট রাইড ও লাইভ কনসার্ট। ফেস্টে থাকবে দেশি বিদেশি বিভিন্ন ব্রান্ডের নামীদামি গাড়ি ও মোটর বাইক। 

প্রতিদিন বিকেলে ঢাকা ও চট্টগ্রামের কয়েকটি জনপ্রিয় ব্যান্ড নিয়ে থাকবে লাইভ কনসার্ট। যা চলবে প্রতিদিন রাত ১০টা পর্যন্ত। ব্যান্ড সংগীত পরিবেশন করবে আসওয়াদ, আর্ক, বে অব বেঙ্গল, তীরন্দাজ, স্টোন, উন্মাদ, ম্যাট্রিক্যাল, থাউজেন্ড ডায়াস, হেমারন, ওয়ান ক্লাউড, ইলেকট্রিক্যাল ফোর্স ও ডিস মেলোডিয়া।

ইভেন্টের দায়িত্বে থাকছে উইজার্ড শো-বিজ, অনুষ্ঠানের প্রধান পৃষ্ঠপোষক দেশের স্বনামধন্য শিল্প গ্রুপ পিএইচপি ফ্যামিলি। পাওয়ার্ড বাই হিসেবে থাকবে অনলাইন মার্কেটিং দারাজ ও পরিচিত রাইড পাঠাও। অনুষ্ঠানের টিকিট পাওয়া যাবে ভেন্যু কাউন্টারে। ৫০ টাকার টিকিটের সঙ্গে ফিজি আইচ টি ফ্রি।

সংবাদ সম্মেলনে বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন পিএইচপি অটোমোবাইলস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ আকতার পারভেজ, পাঠাও'র চট্টগ্রাম ও সিলেট রিজিওনাল হেড ইশফাক চৌধুরী, উইজার্ড শো-বিজের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আরিফুজ্জামান রাসেল, দারাজের ইবতেসাম ইসলাম প্রমুখ।


সাবস্ক্রাইব ইউটিউব চ্যানেল