বিপিএলের প্রথম ম্যাচে ফিক্সিংয়ের অভিযোগ

বিপিএলের প্রথম ম্যাচে ফিক্সিংয়ের অভিযোগ

 নিজস্ব প্রতিবেদক
  ২০১৯-১২-১৪: ০৬:৫৮ পিএম

বিপিএলের প্রথম ম্যাচে ফিক্সিং হয়েছে এমন অভিযোগ ক্রিকেট পাড়ায় কান পাতেই শোনা যাচ্ছে। আসরের উদ্বোধনী ম্যাচে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের বিপক্ষে সিলেটের ক্যারিবীয়ান পেসার ক্রিসমার সান্টোকির বিরুদ্ধে উঠেছে স্পট ফিক্সিংয়ের মতো গুরুতর অভিযোগ। এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যেও হচ্ছে সমালোচনা। যদিও, এ ব্যাপারে জানতে চাইলে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন'ও পরিষ্কার কিছু বলতে পারেননি। নীরব সিলেট থান্ডারের দলের কর্মকর্তারা'ও।

বিপিএল শুরু আগে নানা অব্যবস্থাপনার মাঝে এবার ফিক্সিং বির্তক উস্ক দিয়েছে সান্টোকির এই নো বল ডেলিভারি। সন্দেহ জেগেছে ভিন্ন কিছুর। খুঁজছেন অনেকে ফিক্সিংয়ের কালো বেড়ালের থামার চিন্হ আছে সান্টোকির পায়ে।

সন্দেহের ডালাপালা আরো ভারী হয়েছে। আরো একটি কারণে। সান্টোকি একই ওভারে বিশাল এক ওয়াইড ডেলিভারিও দিয়েছিলেন। বিপিএলের উদ্বোধনী ম্যাচের দ্বিতীয় ইনিংসের তৃতীয় বলে এক রকম পিচের বাইরে এই ডেলিভারির পর/ একই ওভারের পঞ্চম বলে এমন নো বল প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছে সান্টোকির আচরণ। এর আগে ২০১০ সালে পাকিস্তানের পেসার মোহাম্মাদ আমির একই কায়দা স্পট ফিক্সিং করে নিষিদ্ধ হয়েছিলেন। কিন্তু, সান্টোকির এই নো বল ডেলিভারি আমিরের চেয়েও বড়।

সান্টোকির এমন কাণ্ডে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। শুধু তাই না। ইংল্যান্ডের দ্যা গার্ডিয়ান পত্রিকার প্রধান ক্রীড়া সাংবাদিক বার্নি রনি টুইট করে প্রশ্ন রেখেছেনে।

এ ব্যাপারে দিনভর যোগাযোগের চেস্টা করা হয়েছে সিলেটের টিম ম্যানেজমেন্টর সাথে। কিন্তু, তাদের নীরব ভূমিকা আরো সন্দের দানা বৃস্তিত করেছে। ব্যাপারটি পরিষ্কার করতে পারেননি স্বয়ং বিসিবি সভাপতিও।

বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেন, ওখানে ম্যাচ রেফারি আছে, অ্যাম্পেয়ার আছে এমনকি অ্যান্টি করাপশন ইউনিট আছে, এগুলো তারা দেখবে। এগুলো তো আমাদের দেখার বিষয় না। 

ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব পাওয়ার তথ্য গোপন করার দায়ে সাকিব নিষিদ্ধ হবার পর থেকে ফিক্সিং রোধে সচেতন বিসিবি। এ জন্য বিপিএলের প্রতিটি দলের সাথে আকসুর একজন কর্মকর্তা রাখাও হয়েছে। কিন্তু, সান্টোকির এক ওভারে ওয়াইড ও নো বলের এমন উদ্ভুত ঘটনা নতুন এক ফিক্সিং পাপের আভাস দিচ্ছি।


নিউজটি শেয়ার করুন

সাবস্ক্রাইব ইউটিউব চ্যানেল