ভারতের সঙ্গে ট্রান্সশিপমেন্ট: জানুয়ারিতে  কলকাতা বন্দরের সঙ্গে দুইটি ট্রায়াল

ভারতের সঙ্গে ট্রান্সশিপমেন্ট: জানুয়ারিতে কলকাতা বন্দরের সঙ্গে দুইটি ট্রায়াল

 নিজস্ব প্রতিবেদক
  ২০২০-০১-০৭: ০৪:৫১ পিএম

ভারতের সঙ্গে ট্রান্সশিপমেন্টের জন্য চট্টগ্রাম বন্দর প্রস্তুত বলে জানিয়ে বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান রিয়ার অ্যাডমিরাল জুলফিকার আজিজ বলেছেন, চট্টগ্রাম বন্দর জানুয়ারিতে দুইটি ট্রায়াল করবে কলকাতা বন্দরের সঙ্গে, সুবিধা-অসুবিধা দেখার জন্য।
মঙ্গলবার (৭ জানুয়ারি) বন্দর ভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি এ কথা জানান।

বন্দর চেয়ারম্যান বলেন,  চট্টগ্রাম বন্দরের প্রচুর ক্যাপাসিটি আছে। যদি ট্রান্সশিপমেন্টের জাহাজ আসে সেই জাহাজ হ্যান্ডলিং করতে পারবো। প্রায়োরিটি বার্থিংয়ের বিষয়টি দুই সরকারের চুক্তির ধারার ওপর নির্ভর করবে। তবে নিয়মিত ট্রান্সশিপমেন্ট নির্ভর করবে ব্যবসায়ীরা কখন কার্গো দিতে পারছে তার ওপর। এক্ষেত্রে সরকার নির্ধারিত ট্যারিফ আদায় করবে চট্টগ্রাম বন্দর। কী পরিমাণ পণ্য আনা-নেওয়া হবে সেটি এখন বলা সম্ভব নয়।

এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, বন্দরের দায়িত্ব হচ্ছে পণ্য নিয়ে জাহাজ এলে হ্যান্ডলিং করা। ট্রান্সশিপমেন্টের পণ্য একটি নির্দিষ্ট ইয়ার্ডে বা টার্মিনালে থাকবে। এরপর ট্রাকে ওই কার্গো নির্দিষ্ট গন্তব্যে চলে যাবে।

২০১৯ সালে চট্টগ্রাম বন্দর ৩০ লাখ ৮৮ হাজার টিইইউস কনটেইনার হ্যান্ডলিং করেছে। প্রবৃদ্ধি ৬ দশমিক ৩৪ শতাংশ। এই সময়ে সাধারণ কার্গো হ্যান্ডলিং হয়েছে ১০ কোটি ৩০ লাখ টন। প্রবৃদ্ধি ৭ দশমিক ০৩ শতাংশ। 

কনটেইনার হ্যান্ডলিংয়ের লক্ষ্যে নির্মিতব্য পতেঙ্গা কনটেইনার টার্মিনালের (পিসিটি) অপারেশনাল কার্যক্রম এ বছর শুরু করা যাবে বলেও জানান বন্দর চেয়ারম্যান।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন বন্দর কর্তৃপক্ষের সদস্য মো. জাফর আলম, কমোডোর শফিউল বারী, পরিচালক (প্রশাসন) মমিনুর রশীদ, সচিব মো. ওমর ফারুকসহ বন্দরের উর্ধতন কর্মকর্তারা।


সাবস্ক্রাইব ইউটিউব চ্যানেল