করোনায় মারা গেলেন এস আলম গ্রুপের পরিচালক মোরশেদুল আলম

করোনায় মারা গেলেন এস আলম গ্রুপের পরিচালক মোরশেদুল আলম

 নিজস্ব প্রতিবেদক
  ২০২০-০৫-২২: ১১:৪০ পিএম

চট্টগ্রামে এবার করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন দেশের শীর্ষস্থানীয় শিল্প প্রতিষ্ঠান এস আলম গ্রুপ ও এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংকের পরিচালক  মোরশেদুল আলম (৬২)।

শুক্রবার (২২ মে) রাত দশটার দিকে চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের আইসিইউতে তিনি মারা যান। তিনি এস আলম গ্রুপের চেয়ারম্যান সাইফুল আলম মাসুদের বড়ভাই। বিষয়টি নিশ্চিত করেন, চট্টগ্রাম বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক হাসান শাহরিয়ার কবির।

জেনারেল হাসপাতালের সিনিয়র কনসালটেন্ট ডা. আবদুর রব জানান, মোরশেদুল আলম সহ তার পরিবারের ৬ সদস্যের গত ১৭ মে করোনা পজিটিভ ধরা পড়ে। এর মধ্যে মোরশেদুল আলমের শারিরীক অবস্থা কিছুটা খারাপ ছিলো। বৃহস্পতিবার উনি শ্বাসকষ্ট সহ চট্টগ্রামের করোনা বিশেষায়িত হাসপাতাল জেনারেল হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি হন। শুক্রবার সারাদিন উনার শারীরিক অবস্থা ভালো থাকলেও সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে একদফা কার্ডিয়াক এরেস্ট হয়। এরপর রাত সাড়ে দশটার দিকে চিকিৎসকরা উনাকে মৃত ঘোষণা করেন। 

এর আগে রোববার (১৭ মে) চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের ল্যাবের পরীক্ষায় সাইফুল আলম মাসুদের পরিবারের ৬ সদস্য করোনা পজিটিভ রোগী হিসেবে শনাক্ত হন। ব্যবসায়ী সাইফুল আলম মাসুদের যে পাঁচ ভাই করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছেন তারা হলেন এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংকের পরিচালক ৬২ বছর বয়সী মোরশেদুল আলম (মৃত), এস আলম গ্রুপের পরিচালক ৬০ বছর বয়সী রাশেদুল আলম, এস আলম গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান ৫৩ বছর বয়সী আবদুস সামাদ লাবু, ইউনিয়ন ব্যাংকের চেয়ারম্যান ও এস আলম গ্রুপের পরিচালক মোহাম্মদ শহীদুল আলম এবং এস আলম গ্রুপের পরিচালক ৪৫ বছর বয়সী ওসমান গণি। এছাড়া করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ওই পরিবারের ৩৬ বছর বয়সী এক নারীও।

বর্তমানে সুগন্ধা আবাসিক এলাকায় তাদের বাড়িটি লকডাউন অবস্থায় আছে।

এদিকে এ দানবীরের মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে পুরো চট্টগ্রাম।  করোনা সঙ্কট শুরুর পর থেকেই এস আলম গ্রুপ চট্টগ্রামের বিভিন্ন হাসপাতাল, চিকিৎসক, সাংবাদিকসহ করোনা যোদ্ধাদের পাশে দাঁড়িয়েছে। এর আগে থেকেই পুরো দেশেই এস আলম পরিবার তাঁদের দানশীলতার জন্য পরিচিত। সেই পরিবারের সদস্যের এভাবে চলে যাওয়া মেনে নিতে পারছেনা চট্টলাবাসী।  


সাবস্ক্রাইব ইউটিউব চ্যানেল