নগরীতে ঈদের জামাত হবে যেখানে, যেভাবে ...

নগরীতে ঈদের জামাত হবে যেখানে, যেভাবে ...

 নিজস্ব প্রতিবেদক
  ২০২০-০৭-৩১: ১১:৩৪ এএম

মহামারী করোনা পরিস্থিতির কারণে ঈদ উল ফিতরের মতো এবার নগরের কোনো ঈদগাহ বা উন্মুক্ত জায়গায় ঈদুল আজহার জামাত হচ্ছে না। সিটি কর্পোরেশনও ঈদগাহ বা খোলা মাঠে না করার আহ্বান জানিয়েছে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন।

আর মসজিদে ঈদের জামাতে সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে জামাত আদায়ের জন্য বলা হয়েছে। মসজিদ কমিটিকে সাধ্যানুযায়ী হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও সাবান-পানি দিয়ে হাত ধোয়ার ব্যবস্থা রাখতে বলা হয়েছে।

এমন পরিস্থিতিতে শনিবার নগরীতে ঈদের প্রথম ও প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল পৌনে ৮টায় দামপাড়ার জমিয়তুল ফালাহ মসজিদে। সিটি কর্পোরেশনের তত্ত্বাবধানে একই মসজিদে দ্বিতীয় জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল পৌনে ৯টায়।  

প্রথম জামাতে ইমামতি করবেন জমিয়তুল ফালাহ মসজিদের খতিব ও জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলিয়া মাদ্রাসার মুহাদ্দিস আল্লামা সৈয়দ আবু তালেব মোহাম্মদ আলাউদ্দীন আল কাদেরী। 

প্রতিবার সিটি কর্পোরেশনের তত্বাবধানে ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হলেও এবার তা হচ্ছে না। কর্পোরেশন নগরীর বিভিন্ন ওয়ার্ডের মসজিদের নিজেদের তত্বাধানে ঈদ জামাতের আয়োজন করছে।

কর্পোরেশন সূত্র জানায়, নগরীর লালদীঘি শাহী জামে মসজিদে ঈদ জামাত হবে সকাল সোয়া ৮টায়। চকবাজার সিটি করপোরেশন জামে মসজিদ ও সাড়ে ৭টায় মা আয়েশা সিদ্দিকা চসিক জামে মসজিদে (সাগরিকা জহর আহমদ চৌধুরী স্টেডিয়াম সংলগ্ন) ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে। জালালাবাদ আরেফিননগর সিটি করপোরেশন কেন্দ্রীয় কবরস্থান জামে মসজিদের ঈদ জামাত হবে সকাল সোয়া ৮টায়। সকাল ৮টায় চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের তত্ত্বাবধানে হজরত শেখ ফরিদ (র.) চশমা ঈদগাহ ময়দান। 
 
স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব মেনে নগরের ৪১টি ওয়ার্ডের প্রতি ওয়ার্ডে কাউন্সিলরদের তত্ত্বাবধানে ১টি করে প্রধান ঈদ জামাত নিজ নিজ মসজিদে অনুষ্ঠিত হবে।  

এদিকে এক বিবৃতিতে চসিক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন চট্টগ্রামসহ দেশবাসীকে ঈদুল আজহার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।
 
মেয়র বলেন, সুমহান ত্যাগের মহিমায় এক অনন্য দৃষ্টান্ত পবিত্র ঈদ-উল আজহা। পশু কোরবানির মধ্য দিয়ে সৃষ্টিকর্তার প্রতি ত্যাগের মহান আদর্শ স্থাপিত হয়েছে, যা ত্যাগের মহিমায় ভাস্বর। সমাজে হিংসা-বিদ্বেষ, হানাহানি, পরশ্রীকাতরতা থেকে মুক্তির জন্য কোরবানি আল্লাহ তায়ালার রহমত স্বরূপ।
 
তিনি বলেন, এবার এমন এক সময়ে ঈদুল আজহা উদযাপিত হতে যাচ্ছে যখন সমগ্র বিশ্ব কোভিড-১৯ মহামারীর প্রকোপে তটস্থ। এই পরিস্থিতিতে পরিবেশ দূষণ রোধকল্পে ও জনস্বাস্থ্য সুরক্ষায় নির্ধারিত স্থানে কোরবানির পশু জবাইয়ের জন্য নির্ধারিত স্থানসহ পুরো নগরে পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।  

কোরবানির মাধ্যমে আত্মত্যাগের পাশাপাশি আত্মসচেতনতার শিক্ষা নেওয়ার আহ্বান জানান মেয়র।


সাবস্ক্রাইব ইউটিউব চ্যানেল