'আব্বায় মাস শেষে টাকা পাঠাইতো, এখন পাঠাইবে কে' সেই পরিবারের পাশে সাইফ পাওয়ারটেক

'আব্বায় মাস শেষে টাকা পাঠাইতো, এখন পাঠাইবে কে' সেই পরিবারের পাশে সাইফ পাওয়ারটেক

 নিজস্ব প্রতিবেদক
  ২০২০-০৯-১৫: ০৭:১৮ পিএম

নারায়ণগঞ্জে মসজিদে গ্যাস বিষ্ফোরণ ঘটনায় আরও অনেকের সাথে মারা যান মো. আবুল বাসার মোল্লা (৪০)। আবুল বাসার নারায়ণগঞ্জের একটি ওষুধ কোম্পানির মেশিন অপারেটর ছিলেন। বাড়ি মাদারীপুর সদর উপজেলার ছিলারচর ইউনিয়নের চরলক্ষ্মীপুর গ্রামে। যে মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে, তার পাশে একটি ভাড়া বাসায় থাকতেন তিনি। গ্রামের বাড়িতে থাকতেন তাঁর স্ত্রী ও পাঁচ সন্তান। পরিবারের একমাত্র উপার্জনকারী ব্যক্তি আবুল বাসার মোল্লার এমন মৃত্যু কোনোভাবেই মানতে পারছিলেন না স্ত্রী ও সন্তানেরা। হঠাৎ এমন প্রিয়জন হারানোয় শোকের পাশাপাশি ভবিষ্যৎ নিয়েও তাঁরা দুশ্চিন্তায় পড়ে যান। 

আবুল বাসারের বড় ছেলে হাবিবুল বাসার স্নাতক (সম্মান) দ্বিতীয় বর্ষে পড়েন। পিতার মৃত্যুর পর ৭ সেপ্টেম্বর একটি জাতীয় দৈনিকে ছেলে হাবিবুল তখন বলেছিলেন ‘আব্বায় মাস শেষে টাকা পাঠাইত। সেই টাকায় আমার সব ভাইবোনের পড়ালেখার খরচ চলত। এখন আর টাকা পাঠাইবে কে? আমাদের সবার পড়ালেখা বন্ধ হয়ে গেল।’ 

গণমাধ্যমে মর্মস্পর্শী এমন শিরোনামের খবরটি সাইফ পাওয়ার গ্রুপ কর্তৃপক্ষের নজরে আসে। তাৎক্ষনিকভাবে পরিচালনা পর্ষদের সব সদস্য মৃত আবুল বাসারের পরিবারের পাশে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নেয়। পরিচালনা পর্ষদের সিদ্ধান্ত মোতাবেক আবুল বাসারের পরিবারের আনুসঙ্গিক সাংসারিক খরচ মেটানো এবং সন্তানদের শিক্ষা কার্যক্রম নির্বিঘ্নে পরিচালনার জন্য প্রতিমাসে পরবর্তী ২ বছরের জন্য আবুল বাসার মোল্লার স্ত্রী তাজিয়া বেগমকে ২৫ হাজার টাকা করে দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়।

সামাজিক দায়বদ্ধতার অংশ হিসেবে মঙ্গলবার (১৫ সেপ্টেম্বর) সাইফ পাওয়ারটেক লিমিটেডের মহাখালিস্থ খাজা টাওয়ার সেলস অফিসে মৃত আবুল বাসার মোল্লার স্ত্রী তাজিয়া বেগমকে ২৫হাজার টাকার চেক হস্তান্তর করেন গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক তরফদার মো. রুহুল আমিন। 

এ সময় সাইফ পাওয়ার গ্রুপের পরিচালক তরফদার মো. রুহুল সাইফ, ই-ইঞ্জিনিয়ারিং লিমিটেডের সিইও মেজর (অব.) সিরাজুস সালেকীন, গ্রুপের চীফ ফিন্যান্সিয়াল অফিসার মো. হাসান রেজা, এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর এডমিন, মেজর (অব.) ফারুখ আহমেদ খান, সাইফ পাওয়ার ব্যাটারীর হেড অফ ফিন্যান্স এন্ড এ্যাকাউন্ট, মো. হেলাল উদ্দিন শিকদার ও এজিএম, কর্ড মো. নাজমুল করীম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

গত ৪ সেপ্টেম্বর নারায়ণগঞ্জের পশ্চিম তল্লা জামে মসজিদে গ্যাস বিষ্ফোরণে মো. আবুল বাসার মোল্লা ইন্তেকাল করেন। এই অপূরণীয় ক্ষতিতে সাইফ পাওয়ার গ্রুপের সব সদস্য আবুল বাসারের পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানায়।

ব্যবসায়িক কার্যক্রম পরিচালনার পাশাপাশি বিভিন্ন প্রাকৃতিক ও বৈশ্বিক সংকটে সরকারকে সহায়তা করে চলছে সাইফ পাওয়ার গ্রুপ। এর অংশ হিসেবে করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) মহামারি মোকাবেলায় প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে ২ কোটি টাকা নগদ প্রদানসহ বিভিন্ন সরকারী হাসপাতাল ও প্রতিষ্ঠানে অক্সিজেন সিলিন্ডার এবং পিপিই সামগ্রী দিয়েছে ব্যবসায়িক এই গ্রুপ। এছাড়াও আর্তমানবতার সেবায় এই ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানটি সর্বদা দুঃস্থ্য ও অসহায় মানুষের পাশে দাড়িয়ে থাকে। নারায়ণগঞ্জের তল্লা জামে মসজীদে গ্যাস বিষ্ফোরণ ঘটনায় নিহত মো. আবুল বাসার মোল্লার পরিবারের পাশে সামাজিক দায়বদ্ধতা কার্যক্রম হিসেবে সাইফ পাওয়ার গ্রুপ কর্তৃপক্ষের সহায়তার হাত বাড়িয়ে দেয়ার বিষয়টি একটি দৃষ্টান্ত। এই উদ্যোগ সমাজের অন্যান্য বিত্তবানদেরকে দুস্থ মানবতার পাশে দাঁড়ানোর উৎসাহ যোগাবে।


নিউজটি শেয়ার করুন

সাবস্ক্রাইব ইউটিউব চ্যানেল