কুতুপালং শরণার্থী শিবিরে সংঘর্ষে ৪ রোহিঙ্গা নিহত

কুতুপালং শরণার্থী শিবিরে সংঘর্ষে ৪ রোহিঙ্গা নিহত

 নিজস্ব প্রতিবেদক
  ২০২০-১০-০৬: ১০:১৮ পিএম

কক্সবাজারের কুতুপালং শরণার্থী শিবিরে নিজেদের মধ্যে সংঘর্ষে ৪জন রোহিঙ্গা নিহত হয়েছে। অতিরিক্ত শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার মো. সামছুদ্দৌজা জানিয়েছেন, আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে এই সংঘর্ষে অন্তত চার নিহত হয়েছে বলে তিনি জানতে পেরেছেন।

মঙ্গলবার (০৬ অক্টোবর) সন্ধ্যায় এ ঘটনা ঘটে।

এর আগে সকালে ৯ জন রোহিঙ্গা ডাকাতকে অস্ত্র ও গুলিসহ আটক করে র‍্যাব।

উখিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আহমদ মঞ্জুর মোর্শেদ জানিয়েছেন, এর আগে গত ৩দিনে শরণার্থী শিবির থেকে ৪জন রোহিঙ্গার মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এনিয়ে গত ৪ দিনে শরণার্থী শিবিরে নিহত হলেন ৮ জন রোহিঙ্গা।

রোহিঙ্গারা জানান, ক্যাম্পে ইয়াবা পাচার, চাঁদাবাজি, অপহরণ নিয়ে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী মুন্না বাহিনীর সাথে আরেক সন্ত্রাসী বাহিনীর দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিলো। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় উভয় গ্রুপ সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এক ঘন্টা উভয় গ্রুপের মধ্যে থেমে থেমে গোলাগুলি হয়। ভারি অস্ত্রের পাশাপাশি দেশীয় অস্ত্র নিয়েও উভয়পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এ সময় ৪ জন নিহত হয়।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চত করেন, রোহিঙ্গা ক্যাম্পের দায়িত্বে থাকা ১৪ আমর্ড পুলিশ ব্যাটালিয়ন এপিবিন অধিনায়ক আতিকুর রহমান। তবে বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে বলে জানান তিনি।

এর আগে, ৪ অক্টােবর ভোরে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে ইমাম শরীফ (৩৩) ও শামসুল আলম (৪৫) নামের দুইজন নিহত হয়। এ ঘটনায় আহত হয় আরো অন্তত দশজন। দুই সন্ত্রাসী গ্রুপের কারণে পুরো রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ছড়িয়ে পড়েছে আতঙ্ক ও উদ্বেগ।

অতিরিক্ত শরনার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার মো. সামছুদ্দৌজা জানান, ক্যাম্পে গুজব ও অপরাধ দমাতে পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে।


নিউজটি শেয়ার করুন

সাবস্ক্রাইব ইউটিউব চ্যানেল