শেষ দিনে জমজমাট প্রচারণা

শেষ দিনে জমজমাট প্রচারণা

 নিজস্ব প্রতিবেদক
  ২০২১-০১-২৫: ০৫:১৭ পিএম

আগামী বুধবার (২৫ জানুয়ারি) অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে বহুল প্রতিক্ষিত চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) নির্বাচন। নির্বাচনী আচরণবিধি অনুযায়ী আজ সোমবার (২৫ জানুয়ারি) মধ্যরাতে শেষ হচ্ছে নির্বাচনের সব ধরনের প্রচার-প্রচারণা। সেই হিসেব সকালটা শুরু না হলেও দুপুর গড়াতেই চট্টগ্রাম নগরে চলছে জমজমাট প্রচারণা। এই মুহুর্তে শেষ দিনের প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করেছেন মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা।

প্রচারের শেষ দিনে দুপুর বেলা নগরের বহদ্দারহাট এলাকা থেকে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম চৌধুরী। এ সময় তাঁর সঙ্গি হন সাবেক মেয়র আ জ ম নাছিরসহ আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগসহ বিভিন্ন অঙ্গ সংঘটনের নেতাকর্মীরা।

এসময় নিজের জয় নিয়ে শতভাগ আস্তা আছে জানিয়ে রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, ‌‘নগর পিতা হয়ে নয়, সেবক হিসেবে চট্টগ্রামবাসীর ‘খেদমত’ করতে নির্বাচন করছি। ভোটের প্রচারে নেমে ভোটারদের যে স্বতস্ফুর্ততা দেখেছি, তাতে আমি বিজয় নিয়ে শতভাগ আশাবাদী।’

তবে মেয়র প্রার্থী ছাড়াও বিভিন্ন পাড়ায়-মহল্লা জয় বাংলা স্লোগানে মুখরিত করে তুলছে ছাত্রলীগের কর্মীরা। আওয়ামী লীগ প্রার্থী রেজাউল করিম চৌধুরী পক্ষে মিছিল দেখা গেছে নগরের জামালখান, মোমিন রোড, আগ্রাবাদ, চাঁন্দগাওসহ বিভিন্ন এলাকায়। এছাড়াও বিভিন্ন প্রচার গাড়ি থেকে ভোট প্রার্থনা করা হচ্ছে।

এদিকে দলের ২০ নেতাকর্মীকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তুলে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ নিয়ে দিনের শুরু হয় চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপির মেয়র প্রার্থী শাহাদাত হোসেনের। তিনি বেলা ১১ টায় আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করেন, গতকাল রোববার (২৪ জানুয়ারি) রাতে নগরের বিভিন্ন এলাকায় বিএনপি নেতাকর্মীদের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে ২০ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এর মধ্যে নগরের বাকলিয়া এলাকা থেকে বিএনপির এক নারীকর্মী ও তার ১২ বছরের শিশুকেও গ্রেফতার করেছে তারা।

পরে নির্বাচনী প্রচারণা শুরুর পের থেকে দলের ৬৯ নেতাকর্মীকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তুলে নিয়ে গেছে বলে নির্বাচন কমিশনি অভিযোগ করেন মেয়র প্রার্থী শাহাদাত হোসেন।

তবে বেলা সাড়ে ১২ টা থেকে তিনিও নির্বাচনী প্রচারণায় ফিরে যান। এসময় বিপুল নেতাকর্মী নিয়ে তিনি নগরের লাভ লেইন, জুবলী রোড ও নিউ মার্কেট এলাকায় প্রচারণা চালান।

এসময় শাহাদাত বলেন, ‘আমার রক্তের বিনিময়ে হলেও ভোট কেন্দ্রে থাকবো। প্রতিটি কেন্দ্রে নির্বাচনী এজেন্ট যাতে রাখা যায় আমরা সেদিকে লক্ষ রাখবো।’ - এসময় তিনি পরিবর্তনের জন্য ধানের শীষে ভোট দিয়ে তাঁকে জয় যুক্ত করার আহ্বান জানান।

নগরের দেওয়ানহাট এলাকায় মোটর শোভাযাত্রা হয়েছে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী মোহাম্মদ জান্নাতুল ইসলামের সমর্থনে। এর আগে তিনি নগরের আদালত পাড়ায় প্রচারণা চালান। এদিকে দুপুরের পর বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট মনোনীত মেয়র পদপ্রার্থী মাওলানা এম এ মতিনের পক্ষে মিছিল-সমাবেশ করেছে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্র সেনা।

এছাড়াও নগরের ৪১ টি ওয়ার্ডের প্রতিটিতেই এই মুহুর্তে স্ব-স্ব কাউন্সিলর প্রার্থীদের পক্ষে মিছিল ও শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।


নিউজটি শেয়ার করুন

সাবস্ক্রাইব ইউটিউব চ্যানেল